MonJul242017

ডাকাতি ও গণহত্যায় বুদ্ধজিীবীদরে উস্কানি এবং কলংকতি বাংলাদশে

  • PDF
Change font size:


ফরিোজ মাহবুব কামাল

গণহত্যা বাংলাদশেে 
ফরিাউন, হটিলার, স্টালনি বা মুজরি নজিে হাতে মানুষ খুন করছেনে -সে প্রমাণ নাই। অথচ মানব ইতহিাসে তারাই অতি জঘন্যতম গণগত্যার নায়ক। হুকুম পালনে অসংখ্য চাকর-বাকর থাকলে কি নজি হাতে মানুষ খুনরে প্রয়োজন পড়?ে বাংলাদশেরে আইনওে আদালতে প্রমাণতি কোন খুনকিে ফাঁসতিে ঝুলয়িে হত্যার অধকিার কোন ম্যাজস্টিটেরে থাকে না। জলো জজরেও থাকে না। তাঁকওে দশেরে হাইর্কোট থকেে অনুমতি নতিে হয়। কন্তিু স্বরৈাচারি সরকারগণ মানবহত্যার সে অধকিার তাদরে আজ্ঞাবহ অশক্ষিতি দাস-সনৈকিদরে দয়ে। মুজবি তাই সে অধকিার দয়িছেলিনে রক্ষবিাহনিীর সাধারণ সপোইদরেক।ে মুজবিরে এ সপোইগণ ৩০ হাজাররে বশেী মানুষ নর্বিচিারে হত্যা করছেলি। দশেে মশামাছি মারলে যমেন বচিার হয়না, তমেনি ৩০ হাজার মানুষ হত্যারও কোন বচিার হয়ন।ি ফলে হত্যাকারি সপোইদরে মধ্যে কারো গায়ে কোন আঁচড়ও লাগনে।ি অথচ কোন সভ্যদশেে এমন হত্যাকান্ড হবে এবং হত্যাকান্ড শষেে তার নায়কগণ বনিা বচিারে পার পয়েে যাবে সটেি কি ভাবা যায়? কন্তিু বাংলাদশেে সটেইি রীত।ি

একই রূপ নষ্টিুরতা বার বার ফরিে আসছে বাংলাদশে।ে শখে হাসনিা তার পতিার গনহত্যার রীতি পদে পদে অনুসরণ করছনে। নর্বিচিারে মানবহত্যার সে অধকিার তনিি দয়িছেনে পুলশি, র‌্যাব ও বজিবিীর সাধারণ সপোইদরে। তাই পক্ষশিকিাররে ন্যায় তারা মানব শকিার করছ।ে ২৮শে ফব্রেয়োররি একদনিইে তারা ৬০ জনরে বশেী নরিস্ত্র মানুষকে হত্যা করছে।ে পাকস্তিান আমলরে পুরা ২৪ বছরে এর একতৃতীয়াংশ মানুষও কি পুলশিরে গুলতিে নহিত হয়ছে?ে মন্দরিরে সবেক পুরোহতিগণ ভক্তদরে মাঝে নজির্স্বাথইে দবেদবেীর করোমতি বাড়ায়। গরুছাগলও তাদরে হাতে ভগবানে পরণিত হয়। এমন অজ্ঞতার প্রসারইে তাদরে ভক্ত ও উর্পাজন বাড়।ে তমেনি স্বরৈাচারি শাসকদরে সবেকগণও ইতহিাসরে অতি র্দুবৃত্ত শাসককওে মহামানব রূপে পশে কর।ে তাই নমরুদ-ফরিাউনরে ন্যায় গণহত্যার নায়কদরেকে তারা শুধু শাসক রূপে নয়, ভগবান রূপে পশে করছে।ে তমেনি এক দলীয় প্রয়োজনে মুজবিরে অনুসাররিাও গণহত্যার নায়ক বাকশালী এ গণশত্রুকে বঙ্গবন্ধু রূপে প্রতষ্ঠিা দতিে চায়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর পক্ষ থকেে বলা হচ্ছে পুলশি গুলি চালয়িছেে আত্মরর্ক্ষাথ।ে অথচ প্রমাণ পশে করা হয়নি য,ে পুলশিরে উপর কোথাও একটি গুলি চালানো হয়ছে।ে জনগণ বড় জোর পুলশিরে উপর পাথর ছুঁড়ছে।ে কন্তিু তা থকেে বাঁচার জন্য পুলশিরে মাথায় হলেমটে ছলি, সাঁজায়ো গাড়ি ছলি, কাঁদানে গ্যাস ছলি, রবার বুলটে ছলি এবং সাথে লাঠওি ছলি। কন্তিু সগেুলি ব্যাবহার না করে সরাসরি বুলটে ছুড়ার অধকিার তাদরে কে দলি? হত্যা-পাগল সপোইরাই কবেল এমন একটি হত্যাকান্ড ঘটাতে পার।ে এবং সটেি ঘটে সরকাররে নর্দিশে।ে এমন একটা হত্যাকাণ্ডকে গণহত্যা ছাড়া আর কি বলা যতেে পার?ে এবং এর সাথে শখে হাসনিা যে জড়তি তা নয়িওে কি সামান্য সন্দহে থাক?ে এমন হত্যাকে জায়জে করতে প্রতটিি স্বরৈাচারি সরকারই বাহনা পশে কর।ে নহিতদরে বরিুদ্ধে আরোপতি করে মথ্যিা অপবাদ। এমন কি হযরত মূসা (আঃ)র ন্যায় আল্লাহর মহান রাসূলকে ফরিাউন রাজদ্রোহী, ষড়যন্ত্রকারি ও যাদুকর রূপে আখ্যায়ীত করছে।ে সে মথ্যিাকে জনগণরে মাঝে প্রচাররে র্স্বাথে মুজবিরে ন্যায় শখে হাসনিার হাতওে রয়ছেে গৃহপালতি বশিাল মডিয়িা। এরা হত্যাপাগল পুলশি, র‌্যাব, বজিবিীর খুনদিরে সন্ত্রাসী না বলে সন্ত্রাসী বলছে রাস্তায় মছিলিে নামা নরিস্ত্র মুসল্লদিরে। মসজদিে তালা ঝুলানোও এদরে কাছে কোন অপরাধ নয়। গণহত্যার এরূপ নায়কদরে হাতে যুগে যুগে হত্যা ও নর্যিাতনরে কলাকৌশলগুলি বশিাল ইন্ডাস্ট্রতিে পরণিত হয়ছে।ে তাতে উৎপাদতি হয়ছেে হত্যা ও নর্যিাতনরে দানবীয় যন্ত্র। নর্মিতি হয়ছেে আবি গারবিরে ন্যায় বশিাল বশিাল কারাগার। আবস্কিৃত হয়ছেে গ্যাসচম্বোর ও পারমাণবকি বোমা।

মুজবি-হাসনিার তৃপ্তরি ঢকেুর
হটিলার যমেন হাজার হাজার ইহুদীদরে গ্যাস চম্বোরে পাঠয়িে র্ফুতি পতে, তমেনি র্ফুতি পয়েছেে শখে মুজবি। খুনি মুজবি তো সরিাজ শকিদারকে হত্যা করার পর সংসদে র্ফুততিে আস্ফালন তুলে বলছেনে, “কোথায় আজ সরিাজ শকিদার? বাকশালী মুজবি একদলীয় শাসন চাপয়িে বরিোধীদরে রাজনতৈীক অধকিারই শুধু হনন করনেন,ি তাদরে প্রাণও হরন করছেনে। তনিি আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগরে হত্যাপাগল র্কমদিরে দয়িে গড়ছেলিনে নৃশংস রক্ষবিাহনিী। সে রক্ষবিাহনিী গ্রাম-গঞ্জ ও অল-িগলতিে গয়িে রাজনতৈীক বপিক্ষদরে খুঁজতো। নছিক ভন্নি রাজনতৈীক বশ্বিাসরে কারণে তাদরেকে হত্যা করতো। মুজবি সে সময় বঙ্গভবনে বসে আনন্দে ঢকেুর গলিতনে। আর আজ একই ভাবে মাত্র কয়কে দনিে শতাধকি লাশ ফলেে আনন্দরে ঢকেুর গলিছনে তারই কন্যা শখে হাসনিা। উল্লাস করছনে তার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও অন্যান্য আওয়ামী নতোর্কমীরা। আদালতরে পক্ষ থকেে যখন মাওলানা আবুল কালাম আযাদ ও মাওলানা দলোওয়ার হোসনে সাঈদীর ফাঁসরি হুকম শোনানো হয়,তখন আনন্দে তারা মষ্টিি বনিরণ কর।ে

সরকার যে জামায়াত শবিরিরে নর্মিূলে কতটা বপেরোয়া সটেি বোঝা যায় সরকারর মন্ত্রীদরে বক্তৃতা-ববিৃততি।ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আওয়ামী লীগরে দলীয় র্কমীদরে প্রতি আবদেন জানয়িছেনে জামায়াত-শবিরি নর্মিূলরে। প্রধানমন্ত্রী হাসনিা আবদেন জানয়িছেনে, গ্রামে গ্রামে প্রতরিোধ কমটিি গড়ে তোলার। পত্রকিায় প্রকাশ, ঢাকার মট্রেোপলটিন পুলশিরে র্কমর্কতা জনাব বনেজরি আহম্মদ পুলশিরে প্রতি নর্দিশে দয়িছেনে, জামায়াত-শবিরি দখো মাত্রই গুলরি। ফলে পক্ষ-িশকিাররে ন্যায় মানব শকিারে কোথা থকেে অনুপ্ররেণা পায় সটেি কি বুঝতে বাঁকি থাক?ে

হত্যা যখন গণহত্যা
চুর-িডাকাতরি ন্যায় হত্যাও প্রতি সমাজে অহরহ ঘট।ে প্রশ্ন হলো, সাধারণ হত্যাকান্ড থকেে গণহত্যার র্পাথক্য কোথায়? র্পাথক্যটি সহজইে অনুময়ে। সাধারণ খুনরিা ব্যক্তরি র্ধম, ভাষা, গায়রে রং বা রাজনীতি দখেে খুন করে না। কোন দল বা জনগোষ্ঠকিে নমিূলরে জন্যও খুন করে না। এখানে হত্যাকান্ড ঘটে ব্যক্তগিত ভাবে কছিু পাওয়া বা প্রতশিোধরে র্স্বাথ।ে সন্ত্রাসী বা ডাকাতদরে হাতে সংঘটতি হত্যা তাই গণহত্যা নয়। কন্তিু যখন হত্যার লক্ষ্য হয় কোন বশিষে একটি র্ধমীয় বশ্বিাস, র্বণ, ভাষা ও রাজনীতরি মানুষকে বছেে বছেে নর্মিূল করা তখন সটেি নতিান্ত গণহত্যা। বনরে হংিস্র পশুগণ শকিার ধরে নছিক বাঁচার তাগদি।ে পটেরে ক্ষুধা তৃপ্ত হলে পশু আর শকিার ধরে না। এমন শকিার ধরার মটভিটি নছিক বঁেচে থাকা, পশুকুলকে নর্মিূল করা নয়। তাই হংিস্র পশুদরে হামলায় কোন বনই পশুশূন্য হয় না। কন্তিু স্বরৈাচারি শাসকদরে হাতে প্রকাণ্ড গণহত্যা ঘট।ে বরিান হয় ঘরবাড়ি ও জনপদ। কারণ তাদরে লক্ষ্য,নছিক পটেরে ক্ষুধা মটোনো নয়, বরং মনরে সীমাহীন খায়শে পূরণ। পটে পানাহারে র্পূণ হয়, কন্তিু ক্ষুর্দাত মন নছিক পানাহারে তৃপ্ত হয় না। তাদরে মন চায় বপিক্ষ দল বা গোষ্ঠরি সমূলে নর্মিূল। তাই হটিলার শুধু র্জামানীতে বসবাসকারি ইহুদী নতো ও বুদ্ধজিীবীদরে নর্মিূল নয়িে খুশি ছলি না, তার লক্ষ্য ছলি প্রতটিি ইহুদীর মৃত্যূ। সে লক্ষ্যপূরণে হটিলার তাই বড় বড় গ্যাস চম্বোর নর্মিাণ করছেলি।

মুজবি ৩০ হাজাররে বশেী রাজনতৈীক র্কমীকে হত্যা করছেলি তাদরে রাজনীতকিে নর্মিূল করার লক্ষ্য।ে তাই সটেি ছলি নরিটে গণহত্যা। আর হাসনিা তাঁর পতিার সে পদাংক অনুসরণ করে চলছেনে। হাসনিার লক্ষ্য, দশেে ইসলামপন্থদিরে নর্মিূল। তাঁর নজিরে ও দলরে প্রকাশ্য স্লোগান রাজাকার নর্মিূলরে। মুজবিরে হাতে ছলি বশিাল রক্ষবিাহনিী। আর হাসনিা পয়েছেে পুলশি বাহনিী, র‌্যাব আর বজিবিী। সে সাথে আছে ছাত্রলীগরে অস্ত্রধারি ক্যাডার বাহনিী -যারা পুলশিরে পাশে চাপাতি ও রভিলবার নয়িে রাজনতৈকি শত্রু খোঁজে এবং তাদরেকে হত্যা কর।ে নর্যিাতনে ও হত্যায় ছাত্রলীগরে সে ক্যাডারগণ এতটাই বপেরোয়া যে কছিুদনি আগে বশ্বিজতি দাসরে ন্যায় একজন নরিীহ ব্যক্তকিে দনিদেুপুরে পুলশিরে সামনে কুপয়িে হত্যা করছে।ে শাহবাগে যারা সমবতে হয়ছেে তাদরেও লক্ষ্য শুধু গোলাম আযম, নজিামী, মোজাহদি বা সাঈদীর ফাঁসি নয়, তারা চায় প্রতটিি রাজাকাররে ফাঁস।ি আর্ন্তজাতকি অপরাধ ট্রাইবুনালরে নামে হাসনিা সরকার যে আদালত বসয়িছেে তা থকেে শাহবাগরে সমবতে সন্ত্রাসীরা ফাঁসরি হুকুম বাস্তবায়ন ছাড়া অন্য কছিু চায় না। ফাঁসরি চয়েে কম কোন শাস্ততিে তারা রাজি নয়। বশ্বিরে বহু দশেে যাবজ্জীবন কারাদন্ডই র্সবোচ্চ শাস্ত।ি জামায়াত নতো আব্দুল কাদরেে বরিুদ্ধে আদালত তো সে শাস্তইি শুনয়িছেলি। কন্তিু তারা সে শাস্ততিে খুশি নয়। যহেতেু চায় বরিোধীদরে নর্মিূল, ফলে চায় ফাঁস।ি কারণ নর্মিূল তো ফাঁসি বা মৃত্যুদন্ড ছাড়া ঘটনো।

ডাকাতি ও গণহত্যায় বুদ্ধজিীবী
একটি দশে কখনোই কছিু চোরডাকাত, র্দুবৃত্ত অফসিার,সন্ত্রাসী খুনি বা পততিার পাপে ধ্বংস হয় না। ধ্বংস হয় র্দুবৃত্ত বুদ্ধজিীবী ও রাজনতৈীক নতোদরে পাপ।ে কারণ তারাই দশেরে ড্রাইভংি সটি।ে নমরুদ-ফরিাউনরে ন্যায় এরাই আল্লাহর আযাবকে জমনিরে উপর নাময়িে আন।ে বাংলাদশেও আজ এরূপ র্দুবৃত্ত বুদ্ধজিীবী ও রাজনতৈীক নতোদরে হাতে অধকিৃত। বাংলাদশেে বহু মানুষ গুম ও খুন হচ্ছ।ে যমেন পুলশি ও র‌্যাবরে হাত,েতমেনি রাজনতৈীক ক্যাডারদরে হাত।ে এরূপ প্রতটিি খুনরে আসল নায়ক পুলশি বা র‌্যাব যমেন নয়, তমেনি রাজনতৈীক ক্যাডারগণও নয়,বরং মুল কলকাঠটিি নাড়ায় দলরে নতো। এবং সে নতোর সাথে কাজ করে এক পাল রক্তপপিাসু বুদ্ধজিীবী। বস্তুত জাতীয় র্পযায়ে সব সময়ই এমন একটি গণহত্যার পঠভূমকিা নর্মিান করে বুদ্ধজিীবগণ। বপিক্ষীয় দলরে নতোর্কমীদরে হত্যা করা, তাদরে ঘরবাড়,ি দোকান-পাটে ডাকাতি করাকে তারা তাদরে লখেনি ও বক্তৃতা-ববিৃততিে প্রশংসনীয় ও বরিত্বর্পূণ র্কম রূপে চত্রিতি কর।ে

এরূপ বুদ্ধজিীবীগণও যে কতটা ববিকেহীন ও নৃশংস হতে পারে তার নজরি দখো গছেে একাত্তর।ে সে হংিস্রতার নৃশংস প্রকাশ ঘটছেলি বহিারীদরে বরিুদ্ধ।ে তখন ঢাকা বশ্বিবদ্যিালয়রে অঙ্গণে স্লোগন উঠছেলি “একটা একটা মাড়ু (অবাঙালী) ধরো, সকালবকিাল নাস্তা করো”। তখন নশো চপেছেলি খুনরে। তাদরে সে উস্কানরি ফলইে বাঙালীরা সদেনি হাজার হাজার বহিারদরে নর্বিচিারে হত্যা করছে,ে তাদরে দোকানপাট, ঘরবাড়ি দখল করছেে এবং শত শত বহিারী নারীদরে র্ধষণও করছে।ে সে বীভৎস নৃশংসতার কছিু বরিরণ পশ্চমিা বশ্বিরে সাংবাদকি ও পশ্চমিবাংলার র্শমলিা বোসরে লখিনীতে পাওয়া গলেওে বাংলাদশেরে বাঙালী বুদ্ধজিীবীদরে লখেনতিে নইে। তাদরে লখেনতিে তা নয়িে এক লাইন র্বণনাও আসনে।ি এবং সে নৃশংসতার বরিুদ্ধে তাদরে থকেে সামান্যতম নন্দিাবাদও উঠনে।ি এই হলো বাঙালী বুদ্ধজিীবীদরে চরত্রি ও ববিকেরে মান। তাদরে একই রূপ চরত্রি আজ ফুটে উঠছেে শাহবাগরে মঞ্চ।ে এখান তারা নাস্তা করতে চায় জামায়াত শবিরিরে র্কমীদরে রক্তমাংস দয়ি।ে তারা ধ্বনি তুলছে “একটা একটা শবিরি ধরো, সকাল বকিাল নাস্তা করো”।

লক্ষ্য দশেধ্বংস
আওয়ামী লীগরে এজন্ডো দশেগড়া নয়, বরং দশেধ্বংস। বাংলাদশেে শল্পিকারখানা পরকিল্পতি ভাবে ধ্বংস করা হয়ছেলি মুজবি আমল।ে এবং সটেি ছলি ভারতরে হাতে বাংলাদশেরে বাজার তুলে দয়োর লক্ষ্য।ে কারণ ভারতকে এছাড়া খুশি করার কোন সহজ পথ ছলি। ফলে মুজবি আমলে ভারতীয় পণ্যরে সয়লাব এসছেলি। সজেন্য আদমজীর ন্যায় বশ্বিরে র্সববৃহৎ পাটকলকে ধ্বংস করাও ভারতীয় চরগণ অপরহর্িায মনে কর।ে ধ্বংস করা হয়ছেলি পাকস্তিান আমলে প্রতষ্ঠিতি অন্যান্য শল্পি প্রতষ্ঠিানক।ে তখন একরে পর এক আগুন দয়ো হয়ছেলি পাটরে গুদাম।ে ভারতীয় পণ্যরে জন্য খুলে দয়ো হয়ছেলি দশেরে সীমান্ত। এভাবইে একাত্তরে ভারতরে সামরকি অধকিৃতি প্রতষ্ঠিা লাভরে পর প্রতষ্ঠিা পয়েছেলি র্অথনতৈকি অধকিৃত।ি শখে হাসনিাও ময়দানে নমেছেে সে অভন্নি স্ট্রাটজেী নয়ি।ে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদশেরে সবচয়েে বৃহৎ বসেরকারি ব্যাংক। এ ব্যাংকরে র্অথায়নে দশেে ৪ হাজাররে বশেী শল্পি-কলকারখানা প্রতষ্টিতি হয়ছে।ে তাই ভারতীয় র্স্বাথরে সবেকগণ চায়, ইসলামী ব্যাংকরে ন্যায় সফল প্রতষ্ঠিানটরি আশু ধ্বংস। ইতমিধ্যইে তারা সরকারি ব্যাংকরে হাজার হাজার কোটি কাটা ডাকাতি করছে।ে এখন ডাকাতি করতে চায় ইসলামি ব্যাংকরে কোষাগার।ে ডাকাতি করতে চায় ইবনে সনিা হাসপাতাল, ইবনে সনিা র্ফামাসউিটকিালস এর ন্যায় ইসলামপন্থদিরে প্রতষ্ঠিানগুল।ি এমন খুন ও ডাকাত র্কমে উৎসাহ দচ্ছিে দশেরে আওয়ামী লীগরে বুদ্ধজিীবীগণ।

দশেধ্বংসী এসব বুদ্ধজিীবীদরে মন যে কতটা সন্ত্রাসর্পূণ, এবং বপিক্ষীয়দরে সম্পদ লুন্ঠন ও তাদরে রক্ত নয়িে হোলি খলোয় তারা যে কতটা পুলক বোধ করনে তারই চত্রি বরেয়িে এসছেে শাহবাগরে সমাবশেে তাদরে দয়ো বক্তৃতায়। এরা পশোদার খুনি নয়, চোরডাকাতও নয়। কন্তিু তাদরে ভূমকিাটি পশোদার চোরডাকাত ও খুনদিরে চয়েওে ভয়ংকর। খুনি ও চোরডাকাতগণ জনসভায় দাঁড়য়িে মানুষকে হত্যা ও চুরডিাকাততিে উৎসাহ দয়ে না। তারা সে কুর্কমকে নজিদেরে মধ্যইে সীমতি রাখে এবং গোপনে কর।ে কন্তিু আওয়ামী বুদ্ধজিীবীরা সে কুর্কমকে জাতীয় সংস্কৃততিে পরণিত করতে চায়। শাহবাগে প্রদত্ত বক্তৃতায় তারা যমেন খুনে উৎসাহ দয়িছেনে, তমেনি উৎসাহ দয়িছেনে জামায়াতরে গড়া প্রতষ্ঠিানগুলরি সম্পদরে উপর ডাকাততি।েসে উৎসাহতে বহু স্থানে ইসলামী ব্যাংকরে উপর হামলা হয়ছে।ে ইসলামপন্থদিরে প্রতষ্ঠিতি বহু হাসপাতালওে বপিুল ভাংচুর হয়ছে।ে

রক্তপীপাসু বুদ্ধজিীবী
আওয়ামী বুদ্ধজিীবীদরে মূল আগ্রহটওি দশেগড়া নয়,বরং দশেধ্বংস। সে লক্ষ্যে বুদ্ধজিীবী নামধারি এসব আওয়ামী র্দুবৃত্তগণ যে কতটা উগ্র সে চত্রিটি ফুটে উঠছেে দনৈকি সংগ্রামে ৭/৩/১৩ তারখিে ড. মুহাম্মদ রজোউল করমিরে “শাহবাগরে বুদ্ধজিীবীরা” শরিোনামে রচতি একটি নবিন্ধ।ে সে নবিন্ধ থকেে কছিু উদ্ধৃতি দয়ো যাকঃ “সমাবশেে আওয়ামীপন্থী লখেক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল ও ড. আনোয়ার হোসনে সবচয়েে বশেি উস্কানমিূলক বক্তব্য দনে। “জয় বাংলা” বলে বক্তব্য শুরু করে মুহাম্মদ জাফর ইকবাল বলনে,“শবিরিকে প্রতহিত করতে আমাদরে রাস্তায় লাঠসিোটা নয়িে নামতে হব।েতোমরা আজ জগেে উঠছেো, বজিয় হবইে হব।ে” জামায়াত-শবিরিরে সদস্যদরে সমাজ,রাষ্ট্র ও সংবাদ মাধ্যমরে সব ক্ষত্রে থকেে র্বজনরে মাধ্যমে নতুন আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানান তনি।িজাহাঙ্গরি নগর বশ্বিবদ্যিালয়রে ভসিি ড.আনোয়ার হোসনে তো হামলার লক্ষ্যকে শুধু জামায়াতরে নর্মিূলে সীমতি না রখেে বএিনপরি নর্মিূলওে উস্কানি দয়িছেনে। সদেকিে ইঙ্গতি করে তনিি বলনে,‘জামায়াতরে বভিন্নি ষড়যন্ত্ররে সঙ্গে যারা ইন্ধন জুগয়িছে,েতাদরেও বচিাররে সময় এসে গছে।েজামায়াত-শবিরিকে ক্ষমা করার আর সময় নইে।জামায়াত-শবিরি নয়িন্ত্রতি সব প্রতষ্ঠিানকে বন্ধ করে দতিে হব।ে জামায়াতরে রাজনীতি নষিদ্ধি করতে হব।ে” ডা.প্রাণ গোপাল দত্ত বলনে,‘এদশেরে মাটতিে জামায়াত-শবিরি ক্যানসার।একে প্রতহিত করতে না পারলে কউে নরিাপদে থাকবে না। তাই এদরে প্রতহিত করতে হব।ে বাংলার মাটি থকেে জামায়াত-শবিরিকে চরিতরে উৎখাত করতে হব।ে’ আর উৎখাত তো শুধু নর্যিাতন ও তাদরে সম্পদ ডাকাততিে হয় না। এজন্য তাদরে হত্যা করা চাই। তাই সে হত্যার্কমটি যমেন জাফর ইকবাল ও আনোয়ার হোসনে চান, তমেনি চান ডাঃ প্রাণ গোপাল দত্ত। প্রশ্ন হলো,হত্যাপাগল নাযী বাহনিীর খুনদিরে মুখে ইহুদীর বরিুদ্ধে উত্থাপতি আক্রোশ কি এর চয়েে ভন্নিতর ছলি?

যে কোন সভ্যদশেে গণহত্যায় এমন উস্কানমিূলক বক্তৃতা দয়ো নতিান্তই ফৌজদারি অপরাধ। সে অপরাধে নশ্চিয়ই তাদরে শাস্তি হতো। কন্তিু ডাকাত পাড়ায় ডাকাতি ও খুনরে উস্কানি দয়ো কোন অপরাধ নয়। বরং সটেি প্রশংসীন কাজ। নইলে ডাকাতপাড়ায় নতুন ডাকাত গড়ে উঠবে কীরূপ?ে ফলে বাংলাদশেে সে অপরাধে কাউকে গ্রফেতার করে আদালতে তোলা হয়না, শাস্তওি হয় না। সরকার দশেকে একটি ডাকাত-অধকিৃত জনপদে পরণিত করছে।ে তাই এসব অপরাধী বুদ্ধজিীবীদরে কোন শাস্তি হয়ন।ি বরং তারা স্ব স্ব পদে অধষ্ঠিতি আছনে। সমাবশেে আওয়ামী লীগ-বামপন্থী লখেক, বুদ্ধজিীবীদরে নতেৃত্বে গণ-শপথ পাঠ করানো হয়। ঢাকা বশ্বিবদ্যিালয়রে গণতি বভিাগরে সহযোগী অধ্যাপক ড. চন্দ্রনাথ পোদ্দার বলনে, সমাবশে থকেে যে কোনো একদনি গয়িে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে অবস্থতি আমার দশে র্কাযালয় গুঁড়য়িে দয়োর সদ্ধিান্তরে কথা জানানো হয়। আওয়ামীপন্থী বুদ্ধজিীবী ও বাংলা একাডমেীর সভাপতি অধ্যাপক ড. আনসিুজ্জামান, ঢাকা বশ্বিবদ্যিালয়রে বাংলা বভিাগরে অধ্যাপক রফকি উল্লাহ খানসহ আরও অনকেরে বক্তৃতাতওে ছলি ফ্যাসবিাদ ও বাকশালরে পদধ্বন।ি সমাবশেে উচ্চারতি গানরে মধ্যে ছলি, ‘একটা একটা শবিরি ধর, সকাল বকিাল জবাই কর’, ‘জামায়াতরে আস্তানা গুড়য়িে দাও গুঁড়য়িে দাও’, ‘জামায়াতরে আস্তানা দখল কর, দখল কর’, ‘সাম্প্রদায়কিতার আস্তানা, ভঙেে দাও গুঁড়য়িে দাও’, ‘জ্বালো জ্বালো আগুন জ্বালো, শবিরি ধরে জবাই করো’, ‘শবিরি ধরো ধরো, সকাল বকিাল জবাই কর। অধকিাংশ গানরে মূল কথা ছলি জামায়াতে ইসলামী নতোদরে সম্পত্তি দখল করা এবং দলটরি নতো-র্কমীদরে হত্যা বা জবাই করা।”

“নাজী” অধকিৃত বাংলাদশে 
ড.ইনায়তে রহতি নামরে একজন প্রবাসী বাংলাদশেী বাংলাদশেরে র্বতমান চত্রিটি তুলে ধরতে গয়িে লখিছেনে,“ ইধহমষধফবংয রং মড়রহম ঃযব ধিু ঃযধঃ এবৎসধহু ফরফ রহ ১৯২৯-৩০-৩১-৩২-৩৩. চষবধংব ৎবধফ ঃযব যরংঃড়ৎু ড়ভ ঃযব ঘধুর ঢ়ধৎঃু. ও পধহ ংবব ঃযব বীধপঃ ৎবভষবপঃরড়হ রহ ইধহমষধফবংয. ও পধহ ংবব অফড়ষভ ঐরঃষবৎ, ঔড়ংবঢ়য এড়বননবষং, ঐবৎৎ জরননবহঃৎড়ঢ়, ঐবৎসধহহ এড়বৎরহম.......সধঃপয ঃযবস ঃড় ঃযব ঢ়ষধুবৎং রহ উযধশধ.....ুড়ঁ রিষষ ভরহফ বীধপঃ ফঁঢ়ষরপধঃবং. ঞযবু ভরৎংঃ পযধংবফ ঃযব ঃড়ঢ় ঔবরিংয যরবৎধৎপযু, যিড় ঃযবু নষধসবফ ভড়ৎ ফবভবধঃ ড়ভ ডড়ৎষফ ডধৎ ও, ধহফ ঃযবহ বীঢ়ধহফবফ রঃ ঃড় রহপষঁফব বাবৎু ঔব.ি..সধহ, ড়িসধহ, পযরষফ ভড়ৎ ঃযবরৎ সরংভড়ৎঃঁহব. ঋরৎংঃ ঃযবু ষড়ড়ঃবফ ঃযবরৎ ঢ়ৎড়ঢ়বৎঃু, নধহহবফ ঃযবরৎ পষঁনং; ঃযবহ ঃযবু বিহঃ ধভঃবৎ ঃযবরৎ নষড়ড়ফ. ঋরহধষষু রঃ ধিং বাবৎু ঔব.ি..সধহ, ড়িসধহ ধহফ পযরষফ যিড় বিৎব ঃড় নব ৎড়ঁহফবফ ঁঢ় ধহফ নঁঃপযবৎবফ. ইষধসব ধিং ংঢ়ৎবধফ ঃড় রহপষঁফব ঃযব পযরষফৎবহ, ধহফ বাবহ ঁহনড়ৎহ পযরষফৎবহ, ংড় ঐরঃষবৎ ফবপরফবফ ড়হ ঃযব "ভরহধষ ংড়ষঁঃরড়হ", ংড় ভঁঃঁৎব মবহবৎধঃরড়হং ড়িঁষফ হড়ঃ নব নড়ৎহ. ডযবহ ও যবধৎ ঃযব ংযৎরষষ ংষড়মধহং ভৎড়স উযধশধ ঃড় শরষষ ঃযব পযরষফৎবহ ড়ভ "জধুধশধৎং", বাবহ ঃযবরৎ মৎধহফপযরষফৎবহ, ধহফ বাবহ ভঁঃঁৎব মবহবৎধঃরড়হং ঃড় পড়সব, ও ংযরাবৎ.....ও মবঃ ঃযব পড়ষফ ভববষরহম রহ সু ংঢ়রহধষ পড়ৎফ, ও পৎু....রং ঃযরং যিধঃ রং পড়সরহম ? অৎব ঃযব ভড়ষষড়বিৎং ড়ভ চৎড়ঢ়যবঃ গঁযধসসধফ মড়রহম ঃড় ভধপব ঃযব ংধসব পৎঁবষঃু ঃযধঃ ঃযব ভড়ষষড়বিৎং ড়ভ চৎড়ঢ়যবঃ গড়ংবং ভধপবফ ষবংং ঃযধহ ধ যঁহফৎবফ ুবধৎং ধমড়. অৎব ঃযবংব হবি অৎুধহং ( ঃযব ংঁঢ়বৎরড়ৎ ইধশংযধষ ৎধপব) ধং ৎঁঃযষবংং ধং ঃযবরৎ পড়সঢ়ধঃৎরড়ঃং ( ঘধুরং) ড়ভ ধ পড়ঁঢ়ষব ড়ভ মবহবৎধঃরড়হং ধমড় ?

প্রখ্যাত ব্যারষ্টিার ঞড়নু গ. ঈধফসধহ গত ৫র্মাচ ২০১৩ তারখিে তার সাম্প্রতকি বাংলাদশে সফররে অভজ্ঞিতার উপর একটি নবিন্ধ লখিছেনে। সে নবিন্ধে তনিি বাংলাদশেী বুদ্ধজিীবীদরে একটি চত্রি তুলে ধরছেনে। তনিি র্আন্তজাতকি মানবতাবরিোধীতা ট্রাইবুনাল (আইসটি)ির্সম্পকে তনিি লখিছেনে, “অষষ ঃযড়ংব ধপপঁংবফ ড়ভ ধিৎ পৎরসবং সঁংঃ নব পড়হারপঃবফ ধহফ ফঁষু বীবপঁঃবফ. ঘড়ঃযরহম ষবংং রিষষ ংঁভভরপব. ঙহব সঁংঃ ধংশ যিধঃ ঃযবৎবভড়ৎব রং ঃযব ঢ়ড়রহঃ রহ ধ ঃৎরধষ যিবৎব ঃযব ড়হষু ধপপবঢ়ঃধনষব ৎবংঁষঃ রং বীবপঁঃরড়হ. ঙহব রং ৎবসরহফবফ ড়ভ ঃযব ড়িৎফং ড়ভ ঔঁংঃরপব ঔধপশংড়হ, ঈযরবভ চৎড়ংবপঁঃড়ৎ ড়ভ ঃযব ওহঃবৎহধঃরড়হধষ গরষরঃধৎু ঞৎরনঁহধষ, ঘঁৎবসনবৎম যিড় ংঃধঃবফ: “ওভ ুড়ঁ ধৎব ফবঃবৎসরহবফ ঃড় বীবপঁঃব ধ সধহ রহ ধহু পধংব ঃযবৎব রং হড় ড়পপধংরড়হ ভড়ৎ ধ ঃৎরধষ. ঞযব ড়িৎষফ ুরবষফং হড় ৎবংঢ়বপঃ ঃড় পড়ঁৎঃং ঃযধঃ ধৎব সবৎবষু ড়ৎমধহরুবফ ঃড় পড়হারপঃ.

ঞড় ঃযরং ঢ়ড়রহঃ, ঃযব চৎরসব গরহরংঃবৎ, ঝযবরশয ঐধংরহধ ডধলবফ, যধং নববহ ৎবঢ়ড়ৎঃবফ ধং ংধুরহম রহ চধৎষরধসবহঃ ঃযধঃ ংযব ড়িঁষফ ঃধষশ ঃড় ঃযব লঁফমবং ঃড় পড়হারহপব ঃযবস ঃড় ঃধশব ঃযব ংবহঃরসবহঃং ড়ভ ঃযব ঢ়ৎড়ঃবংঃবৎং রহঃড় ধপপড়ঁহঃ রহ ভড়ৎসঁষধঃরহম ঃযবরৎ ফবপরংরড়হং. ওঃ রং হড়ঃধনষব ঃযধঃ ড়হব ড়ভ ঃযব ভরৎংঃ লঁফমসবহঃং রংংঁবফ নু ঃযব ঞৎরনঁহধষ ৎবভবৎৎবফ ঃড় ঃযব ‘রিষষ ড়ভ ঃযব ঢ়বড়ঢ়ষব’ রহ ৎবধপযরহম রঃং ফবপরংরড়হ পষবধৎষু ফবসড়হংঃৎধঃরহম ঃযব বসড়ঃরাব সধহহবৎ রহ যিরপয ঃযবংব ঃৎরধষং ধৎব হড়ি নবরহম পড়হফঁপঃবফ.

ঙহ ২৮ ঋবনৎঁধৎু ২০১৩, ঃযব ঃযরৎফ ধপপঁংবফ, গধঁষধহধ উবষধিৎ ঐড়ংংধরহ ঝধুবফবব, ধিং পড়হারপঃবফ ধহফ ংবহঃবহপবফ ঃড় ফবধঃয ভড়ষষড়রিহম ধ ঃৎরধষ ঃযধঃ ধিং পযধৎধপঃবৎরুবফ নু ঢ়ৎড়ংবপঁঃড়ৎরধষ ধহফ লঁফরপরধষ সরংপড়হফঁপঃ, রিঃহবংং ঢ়বৎলঁৎু, রিঃহবংং ধনফঁপঃরড়হ ধহফ ধ ভষধমৎধহঃ ফবহরধষ ড়ভ নধংরপ যঁসধহ ৎরমযঃং ংঃধহফধৎফং. ঞযব পধষষ ভড়ৎ ফবধঃয বপযড়বফ নু ঃযব ঝযধযনধময ফবসড়হংঃৎধঃড়ৎং যধং ংববসরহমষু ফরপঃধঃবফ ঃযব পড়ঁৎংব ড়ভ বাবহঃং ঁহভড়ষফরহম রহ ঃযব ঞৎরনঁহধষ রহ ধহ ধঃসড়ংঢ়যবৎব যিবৎব ফবভবহপব রিঃহবংংবং ধৎব হড়ি ঃড়ড় ধভৎধরফ ঃড় ধঢ়ঢ়বধৎ ধহফ যিবৎব ঃযব লঁফমবং যধাব হড়ি নববহ ংধিুবফ নু সড়ন, ধহঃর-ঔধসধধঃ ংবহঃরসবহঃ.” ঞযব নরম য়ঁবংঃরড়হ রং যিধঃ ড়িঁষফ যধাব নববহ ঃযব ৎবংঢ়ড়হংব ড়ভ ঃযব ঝযধযনধময ফবসড়হংঃৎধঃড়ৎং যধফ ঝধুবফবব হড়ঃ ৎবপবরাবফ ঃযব ফবধঃয ংবহঃবহপব. ওঃ রং পষবধৎ ঃযধঃ ঃযব ঞৎরনঁহধষ ঔঁফমবং বিৎব ঁহফবৎ ংঁপয ঢ়ৎবংংঁৎব ঃড় ৎবংঢ়ড়হফ ঃড় ঃযব ঢ়ঁনষরপ পধষষং ভড়ৎ নষড়ড়ফ ঃযধঃ, যধফ ঃযবু হড়ঃ ৎবংঢ়ড়হফবফ ধং ংঁপয, রঃ রং হড়ঃ রহপড়হপবরাধনষব ঃযধঃ রঃ পড়ঁষফ যধাব নববহ ঃযবরৎ ড়হি নষড়ড়ফ ংঢ়রষঃ ড়হ ঝযধযনধময.”

শাহবাগরে পজটিভি দকি
র্নদমার মশামাছি ও কীটগুলো কখনোই তাদরে উপস্থতিি গোপন রাখতে পারে না। তাদরে সামনে র্দুগন্ধময় আর্বজনা ফলেলইে তারা স্বর্মুততিে হাজরি হয়। শাহবাগরে মোড়ে ইসলামরে শত্রু নাস্তকি-মুরতাদদরে সমাবশে শুরু হলে এসব আওয়ামী বুদ্ধজিীবীগণও নজি ঘরে নীরবে বসে থাকতে পারনে।ি তারা নজি নজি চরত্রি নয়িে শাহবাগে হাজরি হয়ছে।ে আল্লাহপাক তো এভাবইে সমাজরে ভয়ানক র্দুবৃত্তদরে সমাজে পরচিয় করয়িে দনে। বাংলাদশেে বশ্বিবদ্যিালয়রে ন্যায় বদ্যিাশক্ষিার গুরত্বর্পূণ অঙ্গণওে ইসলামরে কতবড় ভয়ংকর শত্রুগুলো বসে আসে সটেওি আল্লাহতায়ালা দুচোখে আঙ্গুল দয়িে দখেয়িে দলিনে। শাহবাগরে আন্দোলনরে এটইি পজটিভি দকি। ইসলামরে রক্তপপিাসু খুনদিরে তাই আর হ্যারকিনে লাগয়িে নগরে বন্দরে খোঁজাখোঁজরি প্রয়োজন নইে। তারা নজিরোই নজিদেরে প্রকৃত পরচিয়টি স্বশরীরে জনসম্মুখে তুলে ধরছে।ে পানি এতই ঘোলা করা হয়ছেে যে বড় বড় মাছ গুলো এখন ভসেে উঠছে।ে বাংলাদশেরে ভবষ্যিৎ নয়িে যারা ভাবনে তাদরে জন্য এটি এক গুরুত্বর্পূণ বষিয়। বাংলাদশেে রোগ আর এখন লুকানো বষিয় নয়। রোগরে জীবানূগুলো এখন রাজ পথে জোয়ার সৃষ্টি করছে।ে কারা দশেরে শত্রু আর কারা মত্রি সটেি এখন সুস্পষ্ট। এখন প্রয়োজন,রোগমুক্তরি লক্ষ্যে এদরে থকেে নষ্কিৃতরি লড়াই।

চোরডাকাত ও খুনরি সংস্কৃতি শাহবাগে
ডাকাতি করা, লুটতরাজ করা এবং মানুষ খুন করা যে কোন সমাজইে অতি গুরুতর অপরাধ। কোন সভ্য সাধারণ মানুষ এমন অপরাধ র্কমে নামে না। এটইি সভ্য সমাজরে অতি ন্যূনতম মূল্যবোধ ও সংস্কৃত।ি এমন সভ্য সংস্কৃতরি নর্মিাণে বছররে পর বছর র্ধমপালন ও জ্ঞানর্চচার প্রয়োজন হয়। তাই র্ধমহীন ও জ্ঞানর্চচাহীন বনজেঙ্গলে তাই সভ্যতর মূল্যবোধ ও সংস্কৃতি গড়ে উঠে না। পাপুয়া নউিগনি,ি আন্দামান বা নকিোবররে বন্য মানুষগুলো তাই জীবন যাপনে পশুকুল থকেে সামান্যই ভন্নি। কারণ তাদরে মাঝে র্ধম বা জ্ঞানর্চচার প্রবশে ঘটনে।ি ডাকাত-পাড়াতওে সে সংস্কৃতি থাকে না। সখোনে বরং ডাকাত,ি খুন ও র্ধষণও নন্দিনীয় না হয়ে বরং তমেন র্ববর কাজে লাগাতর উৎসাহ দয়ো হয়। ডাকাতপাড়ায় এ রোগটরি মূল কারণঃ র্ধমীয় শক্ষিা ও উন্নত নতৈীক জ্ঞান না থাকা। অথচ ডাকাতপাড়ার সে সংস্কৃতি নমেে এসছেে ঢাকার শাহবাগরে সমাবশে।ে সে সমাবশে থকেে তাই জামায়াত-শবিরিরে নতোর্কমীদরে জবাই করায় উৎসাহ দয়ো হচছে। স্লোগান উঠছেে তাদরে প্রতষ্ঠিানগুলরি উপর ডাকাতরি। স্লোগান দয়ো হচ্ছে সকল ইসলামপন্থদিরে রাজনীতি নষিদ্ধি করার। অথচ সে স্লোগান গুলো ডাকাতপাড়ার ডাকাত বা পততিাপল্লরি পততিাও দচ্ছিে না। বরং দচ্ছিে সখোনে জমা হওয়া কলজে বশ্বিবদ্যিালয়রে হাজার হাজার ছাত্রশক্ষিক। দশেরে বুদ্ধজিীবীগণ। বদ্যিাশক্ষিার নামরে দশেে কি পরমিাণ ঘৃনা, অশক্ষিা ও কুশক্ষিা ছড়ানো হয়ছেে শাহবাগরে আন্দোলন হলো তারই উদাহরণ। উনানে বসয়িে একটু তাপ দলিে পানরি আর্বজনা যমেন ফনো রূপে ভসেে উঠ,ে তমেনি শাহবাগীদরে আন্দোলনে ভসেে উঠছে সমাজরে আর্বজনা।

গভীরতর নতৈীক পচন
বাংলাদশেে নতৈীক পচনটি যে কতটা গভীরে ছড়য়িে পড়ছেে তার কছিু উদাহরণ দয়ো যাক। কোন সভ্যসমাজে কি কখনো এ স্লোগান উঠে য,ে বচিারে রায় হতে হবে একমাত্র মৃত্যুদন্ড? অথচ বাংলাদশেে শুধু সে দাবীই উঠছে না, বরং হুমকি দয়ো হচ্ছে অন্য কোন রায় ঘোষতি হলে তা মানা হবে না। বলা হচ্ছ,ে ফাঁসরি হুকুম না হলে রাজপথরে আন্দোলন থামানো হবে না। এমন দাবতিে শাহবাগরে আন্দোলনকারগিণ একা নয়, তাদরে সে দাবীর প্রতি সর্মথন জানাতে শাহবাগে ছুটে গছেনে ড.কামাল হোসনে, ব্যারস্টিার রফকিুল হক ও আসফি নজরুলরে মত ব্যক্তর্বিগ। ছুটে গছেনে বহু প্রতষ্ঠিতি ব্যক্ত।ি বাংলাদশেরে পচন যে গত গভীর সটেি কি বুঝতে এরপরও বাঁকি থাক?ে বাংলাদশে অধকিৃত শুধু এক স্বরৈাচারি শাসকগোষ্ঠরি হাতইে নয়, নদিারুন জম্মিি হয়ে পড়ছেে নতৈকিতাহীন একপাল ব্দ্ধুজিীবীদরে হাতওে। আদালতরে রায়রে বরিুদ্ধে শাহবাগীদরে বদ্রিোহ, অভযিুক্তদরে বরিুদ্ধে তাদরে ফাঁসরি দাবি এবং সে দাবরি প্রতি এসব বুদ্ধজিীবীদরে একাত্মতার এরূপ খবর যতই বশ্বিব্যাপী প্রচার পাচ্ছে ততই ধক্কিার উঠছে বাঙালীর নতৈীক পচন নয়ি।ে এখন বশ্বিবাসী বুঝতে পারছ,ে একমাত্র এমন এক গভীর পচন নয়িইে একটি জাতি বশ্বিরে ২০০টরি বশেী দশেকে হারয়িে র্দুবৃত্ত র্কমে পর পর ৫বার প্রথম হতে পার।ে নতৈীক পচনটি শুধু দশেরে চোর-ডাকাত, পততিা, ঘুষখোর অফসিার, ডস্টেনিী-হলর্মাকরে ন্যায় কোম্পানীর র্কমর্কতাদরেকইে আক্রান্ত করনে,ি চরম ভাবে আক্রান্ত করছেে বশ্বিবদ্যিালয়রে প্রফসের, আদালতরে বচিারক, আইনবদি, লখেক, বুদ্ধজিীবী ও রাজনীতবিদিদরেও। শাহবাগীদরে আন্দোলনরে ফলে এদরে ভদ্র লবোস দহে থকেে খুলে পড়ছে।ে বশ্বিবাসীর সামনে তারা আজ উলঙ্গ।

বাড়ছে বশ্বিব্যাপী অপমান 
বচিাররে রায় শুধু মৃত্যুদন্ড হলে আদালত বসানো দরকার ক?ি সে সমাজে তো দরকার শুধু এক পাল হত্যাপাগল জল্লাদরে। সে জল্লাদদরেই বপিুল সমাবশে হয়ছেে শাহবাগ।ে সে প্রশ্নটি রখেছেনে বলিতেে প্রখ্যাত ব্যারস্টিার টবি ক্যাডমান। একই কারণে বস্মিতি হয়ছেনে বশ্বিরে প্রতটিি ববিকেমান ব্যক্ত।ি ট্রাইবুনাল বাতলিরে বরিুদ্ধে শত শত মানুষ প্রতবিাদে রাজপথে নমেছেে লন্ডন, কায়রো, ইস্তাম্বুল, কলকাতা, কূয়ালামপুর ও টোকওিসহ বশ্বিরে বহু নগরীত।ে উদ্বগে বড়েছেে বশ্বিরে বভিন্নি দশেরে সরকার।ে পৃথবিীপৃষ্ঠে বচিাররে নামে এতবড় হত্যাকান্ড আধুনকি কালে হলে তাতে শুধু বাঙালীদরেও অপমান বাড়বে না, অপমান বাড়বে সমগ্র মানব জাতরি,বশিষে করে মুসলমানদরে। বাঙালী মুসলমানগণ ইতমিধ্যইে মুসলমি ইতহিাসে বহু অপর্কমে রর্কেড গড়ছে।ে সটেি যমেন একাত্তরে মুসলমি ভূমতিে বশিাল কাফরে বাহনিী আহবান কর,েতমেনি মুজবিামলে তলাহীন ভক্ষিার ঝুলি এবং নব্বইয়রে দশকে হাসনিার প্রথমবার ক্ষমতায় আসায় র্দুনীততিে বশ্বিে প্রথম হওয়ার মধ্য দয়ি।েএখন বাংলাদশেরে ইতহিাসে আরকে কলংক যোগ হতে যাচ্ছ।ে সটেি বচিাররে নামে প্রতটিি রাজাকাররে ফাঁসরি হুকুমরে নামে আরকে গণহত্যার।ফাঁসরি রায় আদায়ে আদালতরে উপর প্রচন্ড চাপসৃষ্টরি উদ্দশ্যেে রাজপথে নামানো হয়ছেে দলীয় ক্যাডারদরে।বচিারকদরে তারা জল্লাদ রূপে ব্যবহার করতে চায়। ক্যাডারদরে দাবী,আদালতে ফাঁসরি হুকুম না হলে তারা মাঠ ছাড়ছে না। সরকার তাদরে শুধু উৎসাহ ও নরিাপত্তাই দচ্ছিে না,লাগাতর র্অথ ও খাদ্যপানীও জোগাচ্ছ।ে অথচ এরূপ পাইকারি ফাঁসরি হুকুম নুরমের্বাগরে আদালতে নাজীদরে যমেন হয়ন,িহগেরে আর্ন্তজাতকি আদালতে কোন যুদ্ধাপরাধীরও হয়ন।ি অথচ বাংলাদশেে এমন দাবি উঠছে ১৬ কোটি দশেবাসীর নাম।েএমন দাবতিে বশ্বিবাসীর সামনে নজিদেরে কর্দযতা ও অপমান ছাড়া আর কি র্অজতি হতে পার?ে বাংলাদশেরে বরিুদ্ধে এরচয়েে বড় অপরাধই বা কি হতে পার?ে বাংলাদশেরে জনগণ কি এরূপ কর্দয অপরাধীদরে বরদাশত করতে থাকব?ে

বাঙালী মুসলমানরে র্ব্যথতা
ইসলামে ইবাদত শুধু নামায-রোযা,হজ-যাকাত আদায় নয়,বরং অতি গুরুত্বর্পূণ ইবাদত হলো ন্যায়রে প্রতষ্ঠিা ও অন্যায়রে নর্মিূল। আল্লাহর এ হুকুম পালনই মুসলমানরে জীবনে মূল মশিন।সে মশিন পালনইে মুসলমানরে জীবনে জহিাদ শুরু হয়।সে জহিাদরে বরকতইে তারা পরণিত হয় শ্রষ্ঠে মানব।ে এবং নর্মিতি হয় শ্রষ্ঠেতম সভ্যতা।সটেইি পবত্রি কোরআনে বলা হয়ছে,ে“তোমরাই শ্রষ্ঠে উম্মত,তোমাদরে আবর্ভিাব হয়ছেে মানবজাতরি জন্য,তোমরা নর্দিশে দাও সৎর্কমরে,আর নষিধে করো অসৎকাজরে,এবং বশ্বিাস করো আল্লাহক।ে”–সুরা আল-ইমরান,আয়াত ১১০।আরো,ে“তোমাদরে মধ্যে অবশ্যই একটি দল থাকতে হবে যারা কল্যাণরে দকিে মানুষকে আহবান করব,েএবং সৎকাজরে নর্দিশে দবিে ও অসৎ কাজরে নষিধে করব।েএবং তারাই সফলকাম।”-সুরা আল-ইমরান,আয়াত ১০৪।যে মুসলমানরে জীবনে আল্লাহ-নর্দিশেতি এ মশিন নইে এবং সে মশিন পালনে জহিাদই নাই –তারা কি বশ্বিরে শ্রষ্ঠে জাতি হতে পার?ে তারা বরং নীচে নামায় বা র্দুবৃত্ততিে বশ্বিরর্কেড গড়বে সটেইি কি স্বাভাবকি নয়? বাংলাদশেরে কলংক বাড়াচ্ছে একাত্তররে রাজাকারগণ নয়,বরং আজকরে ক্ষমতাসীন এ র্দুবৃত্তরাই। বাংলাদশেে নামায-রোযা,মসজদি-মাদ্রাসা বাড়লওে ১৫ কোটি মুসলমানরে দশেটতিে ন্যায়রে প্রতষ্ঠিা যমেন বাড়নে,িঅন্যায়রে তান্ডবও কমনে।িবরং সমগ্র দশেে অধকিৃত হয়ে আছে অতি র্দুবৃত্ত অপরাধদিরে হাত।েবাংলাদশেরে মুসলমানদরে এর চয়েে বড় র্ব্যথতা আর কি হতে পার?ে এ র্ব্যথতা নয়িে মহান আল্লাহর দরবারইে বা কি জবাব দবি?ে 


ফরিোজ মাহবুব কামাল

E Mail :  This e-mail address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it

Comments (0)Add Comment

Write comment
smaller | bigger

busy

Highlights Archive

More Highlights

Science and Technology

Entertainment

Travel

Life Style & Fashion

Health